প্রচ্ছদ / দুআ-দরূদ ও অজীফা / দরূদ শরীফ কি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের জমানায় ছিল?

দরূদ শরীফ কি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের জমানায় ছিল?

প্রশ্ন

অাস্সালামুালাইকুম কেমন অাছেন? অামার প্রশ্ন হল হুজুরে পাক সাঃ জমানায় কি দুরূদ শরীফ ছিলো?

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

কেন থাকবে না? রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের উপর দরূদ পড়ার নির্দেশসূচক আয়াততো নবীজী সাঃ এর উপরই নাজিল হয়েছিল। সাহাবীদের সামনেই নাজিল হয়েছিল। তাহলে আল্লাহর নির্দেশতো প্রথম সাহাবায়ে কেরামই আমল করে দেখিয়েছেন। আর সাহাবাদের মত নবীকে এত ভাল আর কেউ কিয়ামত পর্যন্ত বাসতেই পারে না। সেখানে সাহাবাগণ কি রাসূল সাঃ এর উপর দরূদ পড়বেন না?

আর হাদীসের মাধ্যমেতো পরিস্কার যে, দরূদে ইবরাহীমী যেখানে রাসূল সাঃ এর উপর দরূদ পাঠ করা হয়। যা খোদ আমাদের প্রিয় নবীজী সাঃ নামাযেও পড়েছেন, আবার সমস্ত সাহাবায়ে কেরামও পড়েছেন। যা নবীজী সাঃ এর জমানায় দরূদ পড়ার প্রকিষ্ট প্রমাণ বহন করে।

إِنَّ اللَّهَ وَمَلَائِكَتَهُ يُصَلُّونَ عَلَى النَّبِيِّ ۚ يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُوا صَلُّوا عَلَيْهِ وَسَلِّمُوا تَسْلِيمًا [٣٣:٥٦]

আল্লাহ ও তাঁর ফেরেশতাগণ নবীর প্রতি রহমত প্রেরণ করেন। হে মুমিনগণ! তোমরা নবীর জন্যে রহমতের তরে দোয়া কর এবং তাঁর প্রতি সালাম প্রেরণ কর। [সূরা আহযাব-৫৬]

قَالَ عَبْدُ اللَّهِ: كُنَّا إِذَا صَلَّيْنَا خَلْفَ النَّبِيِّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، قُلْنَا: السَّلاَمُ عَلَى جِبْرِيلَ وَمِيكَائِيلَ السَّلاَمُ عَلَى فُلاَنٍ وَفُلاَنٍ، فَالْتَفَتَ إِلَيْنَا رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ فَقَالَ: ” إِنَّ اللَّهَ هُوَ السَّلاَمُ، فَإِذَا صَلَّى أَحَدُكُمْ، فَلْيَقُلْ: التَّحِيَّاتُ لِلَّهِ وَالصَّلَوَاتُ وَالطَّيِّبَاتُ، السَّلاَمُ عَلَيْكَ أَيُّهَا النَّبِيُّ وَرَحْمَةُ اللَّهِ وَبَرَكَاتُهُ، السَّلاَمُ عَلَيْنَا وَعَلَى عِبَادِ اللَّهِ الصَّالِحِينَ، فَإِنَّكُمْ إِذَا قُلْتُمُوهَا أَصَابَتْ كُلَّ عَبْدٍ لِلَّهِ صَالِحٍ فِي السَّمَاءِ وَالأَرْضِ، أَشْهَدُ أَنْ لاَ إِلَهَ إِلَّا اللَّهُ وَأَشْهَدُ أَنَّ مُحَمَّدًا عَبْدُهُ وَرَسُولُهُ

হযরত আব্দুল্লাহ বিন মাসঊদ রাঃ বলেনঃ আমরা যখন নবীজী সাঃ এর পিছনে সালাত আদায় করতাম, তখন আমরা বলতাম “আসসালামু আলা জিবরীল ওয়া মিকাঈল এবং আসসালামু আলা ফুলান ওয়া ফুলান”। তখন রাসূল সাঃ আমাদের দিকে তাকিয়ে বললেন, আল্লাহ তাআলা নিজেইতো সালাম। তাই যখন তোমরা কেউ সালাত আদায় করবে,তখন সে যেন বলে, আত্তাহিয়্যাতু লিল্লাহি ওয়াসসালাওয়াতু ওয়াত তায়্যিবাতু আসসালামু আলাইকা আইয়্যুহান নাবিয়্যু ওয়ারাহমাতুল্লাহি ওয়াবারাকাতুহু, আসসালামু আলাইনা ওয়া আলা ইবাদিল্লাহিস সালেহীন। কেননা, যখন তোমরা এ বলবে তখন আসমান ও জমীনের আল্লাহর সকল নেক বান্দার কাছে পৌঁছে যাবে। এর সঙ্গে আশহাদু আল্লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়া আশহাদু আন্না মুহাম্মাদান আবদুহু ওয়ারাসূলুহু।{বুখারী, হাদীস নং-৮৩১, ৭৯৭, সহীহ মুসলিম, হাদীস নং-৪০২}

والله اعلم بالصواب

উত্তর লিখনে

লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

ইমেইল- ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

সেলুনে চুল কাটার পর গোসল ফরজ কি?

প্রশ্নঃ সেলুনে চুল কাটার পর গোসল ফরজ কি? উত্তর بسم الله الرحمن الرحيم চুল কাটার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *