প্রচ্ছদ / আজান ও ইকামত / জুমআর সানী আজান কোন স্থানে দেয়া সুন্নাহ সম্মত?

জুমআর সানী আজান কোন স্থানে দেয়া সুন্নাহ সম্মত?

প্রশ্ন

From: নো’মান আহমদ
বিষয়ঃ জুমআর সানী আজান কোন জায়গায় দেওয়া প্রসঙ্গে

প্রশ্নঃ
আস্সালামুআলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ
মুহতারাম মুফতি সাহেব,
একটি জরুরী প্রশ্ন,  জুমআর সানী আজান কোন জায়গায় দিতে হবে?  ইমাম সাহেবের সামনে/নিকটে? না দরজার সামনে/নিকটে? অনেক মসজিদে যে জুমআর সানী আজান দেখি যে তাহারা দরজার সামনে/নিকটে দেন। (যারা দরজার নিকটে/সামনে আজান দেন তারা দলিল হিসেবে বলেন আবু দাউদ শরীফে নাকি হাদীস আছে?)  এখন জানার বিষয়  হলো কোন পদ্ধতি সঠিক??  আর উক্ত হাদীসের সত্যতা কতটুকু? ক্বোরআন ও হাদীস দ্বারা  বিস্তারিত জানালে অনেক উপকৃত হবো।
” জাযাকুমুল্লাহু খায়র ”

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

প্রথমে জেনে রাখতে হবে যে, জুমআর সানী আজান নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের জমানা, এবং আবূ বকর রাঃ এবং উমর রাঃ এর জমানায় ছিল না।

সেই সময় জুমআর আজান একটি ছিল। যা খুতবার আগে ইমামের সামনে দরজায় দাঁড়িয়ে দেয়া হতো।

যেমনটি আবূ দাউদের হাদীসে বর্ণিত হয়েছেঃ-

عَنِ السَّائِبِ بْنِ يَزِيدَ، قَالَ كَانَ يُؤَذَّنُ بَيْنَ يَدَىْ رَسُولِ اللهِ صلي الله عليه وسلم إِذَا جَلَسَ عَلَى الْمِنْبَرِ يَوْمَ الْجُمُعَةِ عَلَى بَابِ الْمَسْجِدِ وَأَبِي بَكْرٍ وَعُمَرَ

আস-সায়িব ইবনু ইয়াযীদ (রাঃ) সূত্রে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম জুমু‘আহর দিন যখন মিম্বারের উপর বসতেন তখন তাঁর সামনে মাসজিদের দরজায় দাঁড়িয়ে আযান দেয়া হতো। আবূ বাকর ও ‘উমার (রাঃ) এর সামনেও অনুরূপ করা হতো। [আবূ দাউদ, হাদীস নং-১০৮৮]

কিন্তু যখন হযরতে উসমান রাঃ এর আমল থেকে জুমআর সানী আজান  চালু হয়, তখন থেকে জুমআর সানী আজান ইমামের সামনে মিম্বরের নিকট দেয়া শুরু হয়।

সুতরাং সানী আজান মানলে তা মিম্বরের কাছে, ইমামের সামনে দেয়াই সুন্নাহ সম্মত।

তবে জেনে রাখতে হবে যে,জুমআর সানী আজান মিম্বরের সামনে, দরজার কাছে, মসজিদের ভিতরে, বারান্দায়, মসজিদের যেকোন স্থানেই দেয়া জায়েজ আছে।

যেহেতু দরজার সামনে দেয়াও জায়েজ আছে। সুতরাং এ নিয়ে বাড়াবাড়ি করা উচিত নয়। তবে সুন্নাহ সম্মত আমল মিম্বরের সামনেই দেয়া। অন্যত্র দিলেও সমস্যা নেই।

وإذا صعد الإمام المنبر جلس وأذن المؤذن بين يدى المنبر بذلك جرى التوارث (هداية-1/151، مجمع الأنهر-1/171، ملتقى الأبحر-1/171)

ويؤذن ثانيا بين يديه أى الخطيب

فى رد المحتار، أى على سبيل السنية كما يظهر من كلامهم (رد المحتار-3/98)

إن التأذين عند الخطبة محله عند الإمام وبذلك جرى التوارث على ما قال صاحب الهداية، قلت فبطل بذلك قول من زعم أن التأذين عند الخطبة فى المسجد بدعة (حاشية آثار السنن-2/95، العرف الشذى على هامش الترمذى-1/116)

وكذا فى الهندية-1/149، جديد-1/210، كبيرى، كتاب الصلاة، فصل فى صلاة الجمعة-520، 561، البحر الرائق-2/274، مراقى الفلاح-515)

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক ও প্রধান মুফতী-তা’লীমুল ইসলাম ইনস্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

ফজরের নামাযে কুনুতে নাজেলা কি হযরত উমর রাঃ সারা বছর পড়তেন?

প্রশ্ন From: মাহমুদ বিষয়ঃ কুনূতে নাযেলা প্রশ্নঃ উমার রাঃ এর আমল হিসেবে আমাদের মসজিদে ফজর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস