হোম / ঈমান ও আমল (page 2)

ঈমান ও আমল

কুরআন পাঠের শুরুতে কী পড়তে হয়?

প্রশ্ন আসসালামু আলাইকুম,আমার প্রশ্ন হচ্ছে কুরআনুল কারিম তেলায়তের পূর্বে কি কি পাঠ করতে হবে? উত্তর وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته بسم الله الرحمن الرحيم কুরআন পাঠের শুরুতে আউজুবিল্লাহি মিনাশ শাইত্বনির রাজীম এবং বিসমিল্লাহির রহমানীর রাহীম পাঠ করতে হয়। فَإِذَا قَرَأْتَ الْقُرْآنَ فَاسْتَعِذْ بِاللَّهِ مِنَ الشَّيْطَانِ الرَّجِيمِ [١٦:٩٨] অতএব, যখন আপনি …

আরো পড়ুন

আল্লাহ তাআলাকে সৃষ্টিকর্তা পালনকর্তা বলে ডাকা যাবে?

প্রশ্ন আসসালামু আলাইকুম। আলহামদুলিল্লাহ। আপনাদের ভিডিও দ্বারা খুব উপকৃত হইতেছি। আহলে হাদীসদের বিভ্রান্তি পরিস্কার হচ্ছে। তো ডাক্তার জাকির নায়েক এর বিভ্রান্তি করা ভিডিও দেখে বুঝলাম আল্লাহকে তার আসমাউল হুসনা অনুসারে ডাকতে হবে। তো আমার প্রশ্ন হল, আমাদের সৃষ্টিকর্তা আল্লাহ তাআলা, প্রতিপালক, রিজিকদাতা আল্লাহ তাআলা এগুলা বলা কি ভুল? শুধু আরব …

আরো পড়ুন

দুআ ও পার্থনা

আল্লামা মনজূর নূমানী রহঃ এটা সর্বজনস্বীকৃত সত্য যে, এই পৃথিবীর সবকিছু আল্লাহ পাকের হুকুমে চলছে। ছোটবড় সব কিছু তার কুদরতি কব্জায় রয়েছে। সুতরাং সকল সমস্যায় তাকে ডাকা এবং সকল প্রয়োজনে তার নিকট দুআ করা একান্ত স্বভাবসিদ্ধ বিষয়। এই জন্য সকল ধর্মে প্রার্থনার বিধান রয়েছে। সবাই আপন আপন প্রয়োজনে সৃষ্টিকর্তার নিকট …

আরো পড়ুন

জান্নাত ও জাহান্নাম

আল্লামা মনজূর নূমানী রহঃ পৃথিবীতে ঈমানের সঙ্গে সঙ্গে যাদের আমলও ভালো ছিলো, হাশরের মাঠে তারা আল্লাহ পাকের আরশের ছায়াতলে স্থান পাবে। বরযখ ও কেয়ামতের সময়টা তাদের আরামে কাটবে এবং তারা দ্রুত জান্নাতে চলে যাবে। আর গুনাহগার মুমিনরা ক্ষমা প্রাপ্ত না হলে বরযখ ও কেয়ামতের আযাব এবং পাপ অনুপাতে জাহান্নামের শাস্তিও …

আরো পড়ুন

উত্তম আখলাক ও চারিত্রিক গুণাবলী

আল্লামা মনজূর নূমানী রহঃ মানুষের আত্মশুদ্ধি এবং চারিত্রিক উন্নতি ইসলামী শিক্ষার এক অতিগুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়। নবীজী এরশাদ করেন, إِنَّمَا بُعِثْتُ لِأُتَمِّمَ صَالِحَ الْأَخْلَاقِ আমি তো আল্লাহ তাআলার পক্ষ হতে সর্বোত্তম চরিত্রমাধুরীর পূর্ণতা বিধানের জন্যই প্রেরিত হয়েছি। মুসনাদে আহমদ, হাদীস নং ৮৯৫১ সচ্চরিত্রের গুরুত্ব ও মর্যাদা সম্পর্কে নবীজী বলেন, إِنَّ مِنْ خِيَارِكُمْ …

আরো পড়ুন

আল্লাহ পাকের সন্তুষ্টি লাভের সহজ তরিকা

আল্লামা মনজূর নূমানী রহঃ আল্লাহ পাকের সন্তুষ্টি এবং পরকালের মুক্তির জন্য বক্ষমাণ পুস্তুকের আলোচিত বিশটি পাঠ –ইনশাআল্লাহ- যথেষ্ট। এখানে কয়েক ছত্রে পুরো কিতাবের সারাংশ তুলে ধরা হচ্ছে। যাতে মনে রাখা এবং আমল করা সহজ হয়। ১। ইসলামের প্রথম শিক্ষা এবং আল্লাহ পাকের সন্তুষ্টি ও জান্নাত লাভের প্রথম শর্ত হলো ‘লা …

আরো পড়ুন

যিকিরের হাকীকত ও ফযীলত

আল্লামা মনজূর নূমানী রহঃ ইসলামী শিক্ষার মূলকথা হলো, আল্লাহর বান্দা আল্লাহর হুকুম-মতো জীবন যাপন করবে এবং সকল কাজে আল্লাহ পাকের আনুগত্য করবে। সর্বাবস্থায় বান্দার দিলে যখন আল্লাহ পাকের কথা স্মরণ থাকবে, আল্লাহ পাকের ভয় ও মুহাব্বত যখন তার অন্তরে স্থান করে নেবে, কেবল তখন সকল কাজে আল্লাহ তাআলার হুকুমের সামনে …

আরো পড়ুন

শরীয়তের উপর অবিচলতা

আল্লামা মনজূর নূমানী রহঃ ঈমান আনার পর আলল্লাহ পাকের পক্ষ হতে একজন মুমিনের উপর যত দায়িত্ব বর্তায়, তার মধ্যে একটি বড় দায়িত্ব হলো, পূর্ণ মানসিক শক্তি ও প্রশান্তির সঙ্গে দ্বীন ও শরীয়তের উপর অটল-অবিচল থাকা। সময় যত সঙ্গীন হোক, পরিস্থিতি যতই প্রতিকূল হোক, কোনো অবস্থাতেই দ্বীন ও শরীয়ত থেকে বিচ্যুত …

আরো পড়ুন

মৃত্যুর পর বরযখ, কেয়ামত ও আখেরাত

আল্লামা মনজূর নূমানী রহঃ এ কথা সবাই জানে ও মানে, যে ব্যক্তি জন্ম গ্রহণ করেছে তাকে মৃত্যু বরণ করতেই হবে। কিন্তু মৃত্যুর পর কী হবে কেউ তা জানে না। আপনা আপনি জানারও কোনো উপায় নেই। এটা শুধু আল্লাহ পাকই ভালো জানেন। তিনি নবীদেরকে জানিয়েছেন, আমরা তা নবীদের কাছ থেকে জেনেছি। …

আরো পড়ুন

লেনদেনে সততা ও হালাল জীবিকা

আল্লামা মনজূর নূমানী রহঃ লেনদেনে সততা, স্বচ্ছতা ও আমানতদারিতা রক্ষা করা ইসলামের বুনিয়াদি শিক্ষার অন্তর্গত। কোরআন ও হাদীস থেকে জানা যায়, পাক্কা মুসলমান সে-ই, যে লেনদেন ও কায়কারবারে সততা ও ন্যায়নিষ্ঠার পরিচয় দেয়। ধোকাবাজি, ওয়াদা-খেলাপি, আমানতের খেয়ানত ইত্যাদি অনৈতিক আচরণ থেকে বিরত থাকে। কারো হক নষ্ট করা, ওজনে কম দেওয়া, …

আরো পড়ুন

তাকওয়া ও খোদাভীতি

আল্লামা মনজূর নূমানী রহঃ তাকওয়া ও খোদাভীতি ইসলামের মৌলিক শিক্ষার মধ্যে গণ্য। এর দ্বারা উদ্দেশ্য হলো, আল্লাহ তাআলার আযাব ও আখেরাতের জবাবদিহিতাকে স্মরণ করে সকল প্রকার মন্দকর্ম থেকে বিরত থাকা এবং আল্লাহ পাকের সমস্ত বিধানাবলি মেনে চলা। অর্থাৎ যে বিষয়গুলি আল্লাহ পাক আমাদের উপর ফরজ করেছেন এবং আমাদের প্রত্যেকের জন্য …

আরো পড়ুন

মোয়াশারাঃ পারস্পরিক হক ও অধিকার

আল্লামা মনজূর নূমানী রহঃ মোয়াশারা বা সহঅবস্থানের নীতি, আদব-কায়দা ও শিষ্টাচার ইসলামী শিক্ষার গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়। খাঁটি মুসলমান হওয়ার জন্য ইসলামী মোয়াশারার অনুসরণ অনুকরণ একান্ত অপরিহার্য। সহঅবস্থানের ক্ষেত্রে পারস্পরিক আচার ব্যবহারের যে রীতিনীতি ও সংস্কৃতি ইসলাম শিক্ষা দেয়, তাকেই ‘আদাবে মোয়াশারা’ বলে। যেমন মাতা-পিতার সঙ্গে সন্তানের আচরণ কেমন হবে, সন্তানের প্রতি …

আরো পড়ুন