হোম / আকিদা-বিশ্বাস / ‘দাড়ি রাখলে ভাল্লুকের মত লাগবে” বলার দ্বারা কী ঈমান চলে যায়?
বিস্তারিত জানতে ছবির উপর টাচ করুন

‘দাড়ি রাখলে ভাল্লুকের মত লাগবে” বলার দ্বারা কী ঈমান চলে যায়?

প্রশ্ন

নাম – নামটি গোপন রাখা হল।
ঠিকানা -ফটিকছড়ি,চট্টগ্রাম
আসসালামু আলাইকুম
হুজুর, আমার স্বামী প্রবাসি। আমার ধারনা মতে তার দ্বীনি ইলম খুব কম। আমি চাই যে সে কোরআন সুন্নাহ মতে চলুক।

আমি বেশ কদিন আগে থেকে দাড়ি রাখার জন্য বলি। কিন্তু তেমন গুরুত্ব দিচ্ছে বলে মনে হচ্ছে না।

এ প্রসঙ্গে কয়েক দিন আগে ফোনে আমাকে রেগে বলে “আমি বুড়া হয়েছি নাকি যে দাড়ি রাখব? ভাল্লুকের মত লাগবে আমাকে” বা এ জাতীয় কথা বলে।

আমি পুরোটা না শুনে লাইন কেটে দিয়েছি।

আমার প্রশ্ন হচ্ছে দাড়ি নিয়ে এরূপ মন্তব্য করাতে তার ঈমান চলে গেছে কিনা?

আল্লাহ না করুন যদি ঈমান চলে গিয়ে থাকে তবে তার সাথে কথা বলা দেখা জায়েজ হবে কিনা?

আমি এই বিষয় নিয়ে চিন্তিত। অনুগ্রহ করে কোরআন সুন্নাহ মতে জবাব দিয়ে আমাকে উপকৃত করবেন।
জাজাকাল্লাহ।

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

 ‘দাড়ি রাখলে ভাল্লুকের মত লাগবে” কথাটি যদি নবীজীর উক্ত সুন্নাতকে সুন্নত হওয়া অস্বিকার করে ঠাট্টা করে থাকে, তাহলে তার ঈমান চলে গেছে। তার তওবা করে নতুন করে ঈমান আনা আবশ্যক।

আর যদি এমনিতেই বলে থাকে, তাহলে কাজটি গোনাহের হলেও তার ঈমান চলে যায়নি।

 

দাড়ি এটি ইসলামের শুধু ওয়াজিব বিধান নয়, বরং এটি ইসলাম ও মুসলমানদের ধর্মীয় প্রতীক। কোন জাতি বা গোষ্ঠি বা রাষ্ট্রের প্রতীক নিয়ে কটূ মন্তব্য করা খুবই গর্হিত কাজ। অর্মাজনীয়ও বটে।

এসব থেকে বিরত থাকা আবশ্যক।

 

যেহেতু বিষয়টি পরিস্কার নয়, সে কী হিসেবে কথাটি বলেছে, তাই তার সাথে কথা বলে, দেখা করে বিষয়টি ক্লিয়ার করাতে কোন সমস্যা নেই।

স্বামীকে কোন কিছু বুঝাতে কৌশল ও বুদ্ধিমত্মার পরিচয় দিন। অহেতুক তর্ক করে রাগাবেন না। তাহলে উপকারের চেয়ে অপকার বেশি হবার সম্ভাবনা থাকবে।

جُلٌ قَالَ لِآخَرَ احْلِقْ رَأْسَك وَقَلِّمْ أَظْفَارَك فَإِنَّ هَذِهِ سُنَّةٌ فَقَالَ لَا أَفْعَلُ وَإِنْ كَانَ سُنَّةً فَهَذَا كُفْرٌ لِأَنَّهُ قَالَهُ عَلَى سَبِيلِ الْإِنْكَارِ وَالرَّدِّ وَكَذَا فِي سَائِرِ السُّنَنِ خُصُوصًا فِي سُنَّةٍ هِيَ مَعْرُوفَةٌ وَثُبُوتُهَا بِالتَّوَاتُرِ كَالسِّوَاكِ وَنَحْوِهِ (مجمع الانهر باب المرتد، دار إحياء التراث1/692 دار الكتب العلمية-2/507)

وكذا فى المحيط البرهانى-7/410)

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা-জামিয়া ফারুকিয়া দক্ষিণ বনশ্রী ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

Print Friendly, PDF & Email
বিস্তারিত জানতে ছবির উপর টাচ করুন

এটাও পড়ে দেখতে পারেন!

আজানে মুয়াজ্জিন যখন “আশহাদু আন্না মুহাম্মাদার রাসূলুল্লাহ” বলে তখন দরূদ পড়া যাবে কী?

প্রশ্ন From: Md. Abu Abdullah Aumi বিষয়ঃ Azaner somoy Muhammad (Sm) er proti dorud pora …