হোম / নামায/সালাত/ইমামত / মক্কায় মুকীম ব্যক্তি মিনা আরাফা মুজদালিফায় ও মুকীম থাকবে না মুসাফির?

মক্কায় মুকীম ব্যক্তি মিনা আরাফা মুজদালিফায় ও মুকীম থাকবে না মুসাফির?

প্রশ্ন

৮ই জিলহজ্বের পূর্বে মক্কায় মুকীম হিসেবে অবস্থান করে মিনা আরাফা মুজদালিফায় মুসাফির হিসেবে বিবেচনা করে আমল করা যাবে কিনা?

উত্তর

بسم الله الرحمن الرحيم

কোন ব্যক্তি যদি প্রথমেই মক্কায় পনের দিন অবস্থান করে ফেলে, তাহলে সে মুকীম হয়ে যায়। এরপর মিনা, মুযদালিফা এবং আরাফায়ও মুকীম হিসেবেই বাকী থাকে। তাই এ সময়গুলোতে নামায কসর করা যাবে না। বরং পূর্ণ নামায পড়া আবশ্যক।

মুসাফির ইমামের পিছনে পড়লে ইমাম সালাম ফিরানোর পর, মুকীম বাকি দুই রাকাত নিজে নিজে পূর্ণ করে নিবে।

হ্যাঁ, যদি হাজী সাহেব মক্কায় পনের দিন অবস্থান না করেই মিনা, আরাফা ও মুযদালিফার উদ্দেশ্যে বের হয়ে গিয়ে থাকেন, তাহলে উক্ত ব্যক্তি মুসাফির।

উপরোক্ত তিন স্থানে হাজী সাহেব কসর নামায আদায় করবেন। [আপ কি মাসায়েল আওর উনকা হল-৫/৩৪৮-৩৪৯]

فى الدر المختار: فلو دخل الحاج مكة أيام العشر لم تصح نيته: لأنه يخرج إلى منى وعرفة فصار كنية الإقامة فى غير موضعها وبع عوده من منى تصح كما لو نوى مبيته بأحدهما أو كان أحدهما تبعا للآخر

وفى رد المحتار: وإن دخل أولا ما نوى المبيت فيه يصير مقيما، ثم بالخروج إلى الموضع الآخر لا يصير مسافرا، لأن موضع إقامة الرجل حيث يبيت به  (الدر المختار مع رد المحتار-2/606-607)

ان الحاج إذا دخل مكة فى أيام العشر ونوى الإقامة نصف شهر لا يصح، لأنه لابد له من الخروج إلى عرفات فلا يتحقق الشرط (البحر الرائق-2/143)

إذا قدم الكوفى فى مكة وهو ينوى أن يقيم فيها وبمنى خمسة عشر يوما فهو مسافر، لأن نية الإقامة ما يكون فى موضع واحد الخ (المبسوط للسرخسى، كتاب الصلاة، باب صلاة المسافر-1/236)

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা-জামিয়া ফারুকিয়া দক্ষিণ বনশ্রী ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

         

Print Friendly, PDF & Email

এটাও পড়ে দেখতে পারেন!

নিজের উপর কুরবানী ওয়াজিব কিন্তু দিতে পারেনি এখন তার করণীয় কী?

প্রশ্ন ধনী ব্যক্তি কোন কারণবশতঃ কুরবানী দিতে পারেনি। তাহলে কুরবানীর দিনসমূহ শেষ হবার পর উক্ত …