হোম / আদব ও আখলাক / দাঁড়িয়ে পেশাব করতে শুধু ইসলাম ধর্মই নিষেধ করে?

দাঁড়িয়ে পেশাব করতে শুধু ইসলাম ধর্মই নিষেধ করে?

লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

ইসলাম মানবতার ধর্ম। স্রষ্টা নির্ধারিত সৃষ্টির উপকারী ধর্ম। ইসলামের প্রতিটি বিধানই মানুষ ও মানবতার জন্য কল্যাণকর।

কিন্তু আমাদের জ্ঞান বুদ্ধির অপরিপক্কতার কারণে অনেক সময়ই আমরা তা অনুধাবন করতে পারি না।

হাজার বছর পূর্বে ইসলাম যা বলে দিয়েছে এক বিংশ শতকে এসে গবেষক বিজ্ঞানীরা এসবের যথার্থতা অনুধাবন করে প্রকৃত অর্থে ইসলামী শরীয়তকে স্রষ্টা কর্তৃক কল্যাণী ধর্ম হবারই প্রমাণ করছে।

যেমন দাঁড়িয়ে পেশাব করা। সাড়ে চৌদ্দশত বছর আগেই আমাদের নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তা করতে নিষেধ করেছেন।

ইসলামী ফিক্বহের কিতাবে এটাকে মাকরূহে তাহরীমী বলে অভিহিত করেছে।

যেমনঃ

عن عائشة قالت : من حدثكم أن النبي صلى الله عليه و سلم كان يبول قائما فلا تصدقوه ما كان يبول إلا قاعدا (سنن الترمذى، ابواب الطهارة، باب [ ما جاء في ] النهي عن البول قاتما، رقم الحديث-12

অনুবাদ-হযরত আয়শা রাঃ বলেন-তোমাদের মাঝে যারা বলে যে রাসূল সাঃ দাঁড়িয়ে প্রস্রাব করেছেন, তাদের কথা বিশ্বাস করো না। কেননা রাসূল সাঃ কেবল বসেই প্রস্রাব করতেন। (সুনানে তিরমিযী, হাদীস নং-১২, মুজামে ইবনে আসাকীর, হাদীস নং-৩৬৬}

ويكره أن يبول قائما أو مضطجعا أو متجردا عن ثوبه من غير عذر فإن كان بعذرفلا بأس به (الفتاوى الهندية-1/50، رد المحتار-1/31

বর্তমান গবেষক ডাক্তারগণ গবেষণা করে হাদীসের উক্ত বিধানকে যথার্থ এবং মানুষের জন্য উপকারী হবার কথা দ্ব্যর্থহীন ভাষায় জানিয়ে দিয়েছে। আলহামদুলিল্লাহ।

গবেষকরা বলেনঃ
বেশিরভাগ পুরুষই দাঁড়িয়ে প্রস্রাব করেন। প্রস্রাব করার সময় পুরুষের এই অভ্যাস অতি পরিচিত। কিন্তু জানেন কী, একাধিক গবেষণায় দেখা গিয়েছে দাঁড়িয়ে প্রস্রাব করার ফলে শরীরে মারত্মক ক্ষতি হয়। দাঁড়িয়ে প্রস্রাব করলে পুরুষের যে সব মারাত্মক ক্ষতি হয় তা প্রকাশ করে জি নিউজ। আসুন তা জেনে নেওয়া যাক;


দাঁড়িয়ে প্রস্রাব করলে প্রস্রাবের দূষিত পদার্থগুলি মূত্রথলির নীচে গিয়ে জমা হয়। অথচ বসে প্রস্রাব করলে মূত্রথলিতে চাপ লাগে, ফলে সহজেই ওসব দূষিত পদার্থ শরীর থেকে বেরিয়ে যায়।


দীর্ঘদিন দাঁড়িয়ে প্রস্রাব করলে প্রস্রাবের বেগ ধীরে ধীরে কমতে থাকে।


দাঁড়িয়ে প্রস্রাব করলে পেটের উপরের অংশে কোনও চাপ পড়ে না। ফলে দূষিত বায়ু স্বাভাবিক ভাবে বের হতে পারে না। উল্টে তা শরীরের উপর দিকে উঠে যায়। এর ফলে শরীরের অস্থিরতা, রক্তচাপ, হৃদস্পন্দনের গতি বৃদ্ধি পায়।


দাঁড়িয়ে প্রস্রাব করলে প্রস্রাবের দূষিত পদার্থগুলি শরীর থেকে ঠিক মতো বেরিয়ে যেতে পারে না। সেগুলি মূত্রথলির নীচে গিয়ে জমা হয়। দীর্ঘদিন দাঁড়িয়ে প্রস্রাব করলে এই দূষিত পদার্থগুলি জমতে জমতে কিডনিতে পাথর সৃষ্টি করে।


একাধিক গবেষণায় দেখা গিয়েছে, যাঁরা নিয়মিত দাঁড়িয়ে প্রস্রাব করেন, তাঁরা শেষ জীবনে ডায়াবেটিস, জন্ডিস বা মারাত্মক কিডনির অসুখে আক্রান্ত হন।

সুতরাং, বদলে নিন অভ্যাস, সুস্থ শরীরে বাঁচুন দীর্ঘদিন। (দৈনিক মানব জমিন, ৩ জুলাই, ২০১৮ ইং)

আসুন সুন্নতী জীবন গড়ি। দুনিয়া ও আখেরাতে সুখী হই।

         

Print Friendly, PDF & Email

এটাও পড়ে দেখতে পারেন!

আটরশী ও মাইজভান্ডার দরবারের আসল রূপ!

লুৎফুর রহমান ফরায়েজী আমাদের বাংলাদেশে ভ্রান্ত আকীদাপন্থী নামধারী পীরদের মাঝে আটরশী ও মাইজভান্ডারীর দু’টি দরবার …