হোম / জায়েজ নাজায়েজ / সৌন্দর্য বৃদ্ধি করতে নারীরা মাথার চুল ছোট করতে পারবে কি?

সৌন্দর্য বৃদ্ধি করতে নারীরা মাথার চুল ছোট করতে পারবে কি?

প্রশ্ন

আসসালামু আলাইকুম।

এই ব্যাপারটায় মহিলারা ব্যাপক হারে অভ্যস্ত। অধিকাংশরাই না জেনে, তাই জরুরী ভিত্তিতে উত্তর দানের অনুরোধ রইলো …..

হযরত বিভিন্ন ফতোয়া বা মাসলা মাসায়েলের কিতাবে মহিলাদের চুল কাটার ব্যাপারে পুরুষের সাথে সাদৃশ্যতা পায় এমনভাবে কাটার ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা পেয়েছি।
এবং বিধর্মীদের অনুকরণের নিষিদ্ধতা।

কিন্তু আজকাল পার্লারে মেয়েরা যেভাবে চুল কাটে যেমন সামনে ছোট ছোট করে, কিংবা ইউ কাট, ভি কাট, লেয়ার কাট এজাতীয় সকল স্টাইলে চুল কাটার ব্যাপারে শরয়ী কোনো নিষেধাজ্ঞা আছে কিনা?
এভাবে কাটা টা এতই ব্যাপক হয়ে গেছে যে, এটা এখন শুধু বিধর্মীদের সাথে সাদৃশ্যতা হিসেবে ধরা যায় না।

আর মেয়েদের তো পর্দায় থেকে সাজসজ্জার অনুমতি আছে। আর এভাবে চুল কাটার দ্বারা মূলত সৌন্দর্য ও বৃদ্ধি পায়।
সেক্ষেত্রে শরয়ী বিধান কি হবে?

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

পুরুষদের সাথে এবং বিধর্মী বা ফাসিকদের সাথে সাদৃশ্য না হলে সৌন্দর্যতা বাড়াতে মহিলাদের জন্য চুল ছোট করা জায়েজ আছে।

কিন্তু যদি পুরুষদের মত ছোট ছোট চুল করা হয়, তাহলে তা অবশ্যই নাজায়েজ। বা কোন বিধর্মীর ষ্টাইলের নকল হয়, তাহলেও তা পরিত্যাজ্য।

قطعت شعر رأسها أثمت ولعنت، زاد فى البزازية: وإن بإذن الزوج، لا طاعة لمخلوق فى معصية الخالق ……والمعنى المؤثر التشبه بالرجال (رد المحتار، كتاب الحظر والإباحة-9/583)

عن ابن عباس رضى الله عنهما قال: لعن رسول الله صلى الله عليه وسلم المتشبهين من الرجال بالنساء والمتشبهات من النساء بالرجال، (صحيح البخارى، كتاب اللباس، باب المتشبهين بالنساء والمتشبهات بالرجال-2/874، رقم-5885)

হযরত ইবনে আব্বাস রাঃ থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম নারীদের সাদৃশ্যগ্রহণকারী পুরুষদের উপর এবং পুরুষদের সাদৃশ্য গ্রহণকারী নারীদের উপর লানত করেছেন। [সহীহ বুখারী, হাদীস নং-৫৮৮৫]

قَالَ: «وَكَانَ أَزْوَاجُ النَّبِيِّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ يَأْخُذْنَ مِنْ رُءُوسِهِنَّ حَتَّى تَكُونَ كَالْوَفْرَةِ»

হযরত আবু সালামা বলেছেন, নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর স্ত্রীগণ তাদের মাথার চুল এমনভাবে ছেঁটে-কেটে রাখতেন যে, শেষ পর্যন্ত তা ওয়াফরা [চুলের মাথা কেটে কান পর্যন্ত করা হলে তাকে ওয়াফরা বলা হয়] এর মত হয়ে যেতো। [সহীহ মুসলিম, হাদীস নং-৬৩৪,৩২০]

وقال النووى: وفيه دليل على جواز تخفيف الشعور للنساء (صحيح مسلم مع شرح مسلم-1/148

ولو حلقت المرأة رأسها فإن فعلت لوجع أصابها لابأس به، وإن فعلت ذلك تشبها بالرجل فهو مكروه (الفتاوى الهندية، كتاب الحظر والإباحة، الباب العشرون-5/358

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা-জামিয়া ফারুকিয়া দক্ষিণ বনশ্রী ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

         

Print Friendly, PDF & Email

এটাও পড়ে দেখতে পারেন!

টাকা দিয়ে সদকায়ে ফিতির আদায় করলে আদায় হবে না?

প্রশ্ন আসসালামু আলাইকুম। আলহামদুলিল্লাহ হজরত আপনার মেহনতের কারণে আমরা আহলে হাদিস ফিরকা থেকে বেঁচে থাকতে …