হোম / প্রশ্নোত্তর / আশুরার দিন পরিবারে ভাল খাবারের আয়োজন কি বিদআত?

আশুরার দিন পরিবারে ভাল খাবারের আয়োজন কি বিদআত?

প্রশ্ন

আশুরার দিন অনেক উলামাগণকে বলতে শুনা যায় যে,সেদিন পরিবার পরিজনের জন্য সাধ্যানুপাতে ভাল খাবারের আয়োজন করতে।

কিন্তু আরেকদল আলেম এ সংক্রান্ত হাদীসকে ভিত্তিহীন বলেও প্রচারণা করছেন।

আমার প্রশ্ন হল, আশুরার দিন পরিবারে ভাল খাবারের আয়োজনের ভিত্তি ইসলামী শরীয়তে আছে কি?

উত্তর

بسم الله الرحمن الرحيم

আশুরার দিন পরিবার-পরিজনের জন্য সাধ্যানুপাতে ভাল খাবারের আয়োজন সম্পর্কিত হাদীসকে ভিত্তিহীন বলা ঠিক নয়। এমন হাদীস ফাযায়েলের ক্ষেত্রে গ্রহণযোগ্য।

তবে লক্ষ্য  রাখতে হবে, যেন উক্ত কাজকে সাওয়াবের কাজ মনে করা না হয়। বরং আল্লাহর কাছে সারা বছরের উত্তম রিজিকের আশা-আকাঙ্খার প্রতীকী পদ্ধতি হিসেবে নেকফালি মনে করবে। [ফাতাওয়া নাওয়াজেল-১/৫০৫, আহসানুল ফাতাওয়া-১/৩৯৫, ১/৫১৩]

نا مُحَمَّدٌ، نا مُحَمَّدٌ، نا عَبْدُ اللَّهِ بْنُ سَلَمَةَ الْجُهَنِيُّ، عَنِ ابْنِ أَبِي صَعْصَعَةَ، عَنْ أَبِيهِ عَنْ أَبِي سَعِيدٍ الْخُدْرِيِّ قَالَ: قَالَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ: «مَنْ وَسَّعَ عَلَى عِيَالِهِ يَوْمَ عَاشُورَاءَ أَوْسَعَ اللَّهُ عَلَيْهِ سَنَتَهُ»

হযরত আবু সাঈদ খুদরী রাঃ থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন, যে ব্যক্তি আশুরার দিন তার পরিবারের উপর সচ্ছলতা দেখাবে, আল্লাহ তাআলা তার জন্য উক্ত বছরকে সচ্ছল করে দিবেন। [মু’জামে ইবনুল আরাবী, হাদীস নং-২২৫, আলমুজামুল আওসাত, হাদীস নং-৯৩০২, আলমু’জামুল কাবীর, হাদীস নং-১০০০৭, শুয়াবুল ঈমান, হাদীস নং-৩৫১৩, ৩৫১৫, ৩৫১৬]

ইমাম বায়হাকী উক্ত হাদীস একাধিক সনদে আনার পর মন্তব্য করেনঃ

هَذِهِ الْأَسَانِيدُ وَإِنْ كَانَتْ ضَعِيفَةً فَهِيَ إِذَا ضُمَّ بَعْضُهَا إِلَى بَعْضٍ أَخَذَتْ قُوَّةً،

এই সনদগুলো যদিও জঈফ। কিন্তু এসব যখন একটি অন্যটির সাথে মিলেছে তখন তা শক্তিশালী হয়ে গেছে। [শুয়াবুল ঈমান লিলবায়হাকী, হাদীস নং-৩৫১৫, খন্ড-৫, পৃষ্ঠা ৩৩৩]

তবে এক্ষেত্রে লক্ষ্যণীয় হল, পরিবারের উপর সাধ্যানুপাতে খরচ করা জায়েজ আছে। বা খরচ করা উচিত। কিন্তু এদিন সম্মিলিতভাবে খিচুরী পাকানো, বিশাল খাবারের আয়োজন করে বিলানো, এসবই খারেজীদের সাথে মিলে যায়। যা সম্পূর্ণ পরিত্যাজ্য ও নাজায়েজ।

وقد عاكس الرافضة والشيعة يوم عاشوراء النواصب من اهل الشام، فكانوا إلى يوم عاشوراء يطبخون الحبوب، ويغتسلون ويلبسون أفخر ثيابهم ويتخذون ذلك اليوم عيدا يصنعون فيها أنواع الأطعمة، ويظهرون السرور والفرح يريدون بذلك عناد الروافض ومعاكستهم (البداية والنهاية-8/599-600

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

Print Friendly, PDF & Email

এটাও পড়ে দেখতে পারেন!

মহিলাদের জন্য পাতলা এবং টাইট জামা পরিধান করার হুকুম কী?

প্রশ্ন মহিলাদের জন্য পাতলা এবং টাইট জামা পরিধান করার হুকুম কী? যেসব মেয়েদের পিতা মাতা …