হোম / অপরাধ ও গোনাহ / লা-মাযহাবী মতবাদে দাওয়াতের কাজ করে হক পথে ফিরে আসার পর কৃতকর্মের জন্য করণীয় কী?

লা-মাযহাবী মতবাদে দাওয়াতের কাজ করে হক পথে ফিরে আসার পর কৃতকর্মের জন্য করণীয় কী?

প্রশ্ন

হযরত, আসসালামু আলাইকুম।

আমার নাম, Tusar uddin

আমি একজন হানাফী। কিন্তু কিছুদিন আগে সালাফী হুজুরদের কিছু বয়ান শুনে আমি ফিতনায় পড়ে গেছিলাম। মনে সন্দেহের রোগ হয়ে গেছিল। কিন্তু আমি এখন আমার ভুল বুঝতে পারছি। আমি এখন গর্বের সাথে বলতে পারি আমি হানাফী।

কিন্তু আমি কিছু ফিতনা সৃষ্টি করে ফেলেছি। আমার বন্ধুদের সালাফী হবার দাওয়াত দিয়ে দিয়েছি। সবে বরাতে আমি সবাইকে আমল থেকে বঞ্চিত করেছি। আট দশজনের মধ্যে দুইজন বাদে সবাই ভুল বুঝতে পারছে।

এখন আমার প্রশ্ন হচ্ছে, এ দুইজনকে আমি কিভাবে বুঝাবো?

আর আমার এ গোনাহ কিভাবে মাফ হবে?

আমি এ বিষয়টার জন্য খুবই লজ্জিত।

আর আপনাদের অনেক ধন্যবাদ জানাই। বিশেষ করে ahalehaqemidea.com ওয়েব সাইট এব তাবলীগ বিরোধী অপপ্রচারের জবাব এই পেইজ থেকে আমি অনেক উপকার পেয়েছি।

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

আল্লাহ তাআলা আপনাকে সহীহ সমঝ দান করেছেন এজন্য মহান মালিকের দরবারে শুকরিয়া জ্ঞাপন করি। আপনি আপনার কৃতকর্মের জন্য যেহেতু লজ্জিত এবং অনুতপ্ত তাই আল্লাহ তাআলা আপনার ভুল নিশ্চয় ক্ষমা করে দিবেন।

আপনি উক্ত ভাইদের আমাদের সাইটের লেখাগুলো পড়তে আমন্ত্রণ করতে পারেন। তাদের কোন প্রশ্ন থাকলে আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে অনুরোধ করতে পারেন।


إِنَّ اللَّهَ يُحِبُّ التَّوَّابِينَ وَيُحِبُّ الْمُتَطَهِّرِينَ [٢:٢٢٢

নিশ্চয়ই আল্লাহ তওবাকারী এবং অপবিত্রতা থেকে যারা বেঁচে থাকে তাদেরকে পছন্দ করেন। [বাকারা-২২২]


وَإِنِّي لَغَفَّارٌ لِّمَن تَابَ وَآمَنَ وَعَمِلَ صَالِحًا ثُمَّ اهْتَدَىٰ [٢٠:٨٢]

আর যে তওবা করে,ঈমান আনে এবং সৎকর্ম করে অতঃপর সৎপথে অটল থাকে,আমি তার প্রতি অবশ্যই ক্ষমাশীল। [সূরা ত্বহা-৮২]

وَتُوبُوا إِلَى اللَّهِ جَمِيعًا أَيُّهَ الْمُؤْمِنُونَ لَعَلَّكُمْ تُفْلِحُونَ [٢٤:٣١]

মুমিনগণ,তোমরা সবাই আল্লাহর সামনে তওবা কর,যাতে তোমরা সফলকাম হও। [সূরা নূর-৩১]

হযরত উবাদা বিন আব্দুল্লাহ তার পিতা থেকে বর্ণনা করেন,রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেনঃ

التَّائِبُ مِنَ الذَّنْبِ، كَمَنْ لَا ذَنْبَ لَهُ

গোনাহ থেকে তওবাকারী এমন,যেন সে গোনাহ করেইনি। [সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদীস নং-৪২৫০]

উক্ত ভাইদের কয়েকটি বই পড়তে দিতে পারেনঃ

ফাযায়েলে আমাল ও উলামায়ে দেওবন্দঃ আপত্তি ও খণ্ডন

সংকলক- মুফতী লুৎফুর রহমান ফরায়েজী,

প্রাপ্তিস্থান- রাহনূমা প্রকাশনী, ইসলামী টাওয়ার, দোকান নং-৩২/এ, আন্ডারগ্রাউন্ড, বাংলাবাজার, ঢাকা, মোবাইল-01762593349, 01972593349

নবীজির নামায
ড শাইখ মুহাম্মদ ইলিয়াস ফয়সাল
মদীনা মুনাওয়ারাহ
পরিবেশক:
মাকতাবাতুল আশরাফ
ইসলামী টাওয়ার, ১১ বাংলাবাজার, ঢাকা- ১১০০।
প্রকাশক:
মুমতায লাইব্রেরী
ইসলামী টাওয়ার, ৬ষ্ঠ তলা
১১ বাংলাবাজার, ঢাকা- ১১০০
ফোন- ৭১৬৪৫২৭, ০১৭১১-১৪১৭৬৪

দলিলসহ নামাযের মাসায়েল [বর্ধিত সংস্করণ]
মাওলানা আব্দুল মতিন
প্রকাশক : মাকতাবাতুল আযহাব (৯৮৮১৫৩২, ০১৯২৪০৭৬৩৬৫)

লা-মাযহাবীদের দলীলহীন মতবাদ

সংকলক-মুফতী লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

প্রাপ্তিস্থান-

রাহনূমা প্রকাশনী

বাংলাবাজার ঢাকা।

০১৯৭২৫৯৩৩৪৯

০১৭৬২৫৯৩৩৪৯

হাদীস ও সান্নাহয় নামাযের পদ্ধতি
মাওলানা মুহাম্মদ আবদুল মালেক
প্রকাশক
মুহাম্মদ হাবীবুর রহমান খান
আল আবরার ট্রাষ্ট
৫০ বাংলাবাজার, ঢাকা-১১০০
ফোন : ৭১৬৪৫২৭, ০১৭১১১৪১৭৬৪]

প্রাপ্তিস্থান
মাকতাবাতুল আশরাফ
ইসলামী টাওয়ার (দোকান নং : ৫)
১১ বাংলাবাজার, ঢাকা ১১০০

হাদীসের আলোকে মহিলাদের সালাত পদ্ধতি

লেখক-ডঃ এ বি এম হিজবুল্লাহ

প্রকাশক

ডঃ এ বি এম হিজবুল্লাহ

অধ্যাপক

আল কুরআন এন্ড ইসলামিক ষ্টাডিজ বিভাগ

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়া, বাংলাদেশ

৪৫৩, শেওড়া পাড়া, মিরপুর, ঢাকা-১২১৬

টেলিফোন-৮০৫৩২৫০, মোবাইল-০১৭১৫৭৮৪৩৪

প্রাপ্তিস্থান

বাইতুশ শাকুর জামে মসজিদ

দক্ষিণ পশ্চিম শেওড়া পাড়া, মিরপুর, ঢাকা-১২১৬, টেলিফোন-৮০৫৩২৫০, মোবাইল-০১৭১৫৭৮৪৩৪

আল কুরআন এন্ড ইসলামিক ষ্টাডিজ বিভাগ, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় কুষ্টিয়া।

এছাড়া কাটাবন কমপ্লেক্সেস সকল লাইব্রেরী।

এছাড়া আহসান পাবলিকেসন্স

৩৮/৩, বাংলাবাজার নীচতলা, ফোন-৯৬৭০৬৮৬

হক লাইব্রেরী

১৮ নং আদর্শ পুস্তক বিপনী বিতান, বাইতুল মুকাররম, ঢাকা -১০০০, ফোন-৯৫৭১৫৬৩।

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

         

Print Friendly, PDF & Email

এটাও পড়ে দেখতে পারেন!

সৌন্দর্য বৃদ্ধি করতে নারীরা মাথার চুল ছোট করতে পারবে কি?

প্রশ্ন আসসালামু আলাইকুম। এই ব্যাপারটায় মহিলারা ব্যাপক হারে অভ্যস্ত। অধিকাংশরাই না জেনে, তাই জরুরী ভিত্তিতে …