হোম / অপরাধ ও গোনাহ / লম্বা কাপড় টাখনুর নিচে চলে গেলে ভাঁজ করে রাখবে?

লম্বা কাপড় টাখনুর নিচে চলে গেলে ভাঁজ করে রাখবে?

প্রশ্ন

আসসালামু আলাইকুম
নাম – সারিদ আহমেদ চৌধুরী
দেশ – ভারত

আমার প্রশ্ন হল যে কাপড় লম্বা হলে বাঁঝ করে টুখনোর উপরে রাখা যাবে কী?
এবং এরকম সবসময় রাখা যাবে  কী

میرا سوال یہ ہے کہ اگر  کپڑا لمبا ہو تو کیا اس کو ٹخنوں کے اوپر بانج کرکے رکہسکتے ھے ۔ اور کیا ایسا رکہنا ہمیشہ صحیح ہوگا ۔ یا ضرورت کے تحت

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحمن

টাখনুর নিচে চলে যায়, এমন কাপড় ইচ্ছেকৃত ক্রয় করাই বৈধ হবে না। কারণ, পুরুষের জন্য টাখনুর নিচে কাপড় পরিধান করা নিষিদ্ধ। তাই এমন কাপড় খরিদ করা থেকেই বিরত থাকতে হবে।

যদি ভুল ক্রমে ক্রয় করেই ফেলেন, তাহলে তা কেটে ছোট করে নিতে হবে।

নতুবা তা ভাঁজ করে টাখনুর উপরেই রাখতে হবে।

عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ رَضِيَ اللَّهُ عَنْهُ، عَنِ النَّبِيِّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ قَالَ: «مَا أَسْفَلَ مِنَ الكَعْبَيْنِ مِنَ الإِزَارِ فَفِي النَّارِ»

হযরত আবূ হুরায়রা রাঃ থেকে বর্ণিত। রাসূল সাঃ ইরশাদ করেছেন, টাখনুর নিচের যে অংশ পায়জামা বা লুঙ্গি দ্বারা ঢাকা থাকে তা জাহান্নামে যাবে। {বুখারী, হাদীস নং-৫৭৮৭, ৫৪৫০}

عَبْدَ اللَّهِ بْنَ عُمَرَ رَضِيَ اللَّهُ عَنْهُمَا يَقُولُ: قَالَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ: «مَنْ جَرَّ ثَوْبَهُ مَخِيلَةً لَمْ يَنْظُرِ اللَّهُ إِلَيْهِ يَوْمَ القِيَامَةِ»

হযরত আব্দুল্লাহ বিন উমর রাঃ বলেন, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেন, যে ব্যক্তি অহংকারবশত মাটিতে কাপড় টেনে টেনে চলে আল্লাহ তাআলা কেয়ামতের দিন তার দিকে দৃষ্টিপাত করবেন না (রাগান্বিত থাকবেন)।-বুখারী, হাদীস : ৫৭৯১;  মুসলিম, হাদীস : ২০৮৫/৪৪।

جواب

ركہ سکتا ہے، لیکن ایسا کپڑا خردناہی غلط ہے، اگر خرید لیا تو ضرورت کے مطابق کاٹ دو، ورنہ بانج کرکے چلو

الدليل الشرعى
عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ رَضِيَ اللَّهُ عَنْهُ، عَنِ النَّبِيِّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ قَالَ: «مَا أَسْفَلَ مِنَ الكَعْبَيْنِ مِنَ الإِزَارِ فَفِي النَّارِ (صحيح البخارى، رقم الحديث-5787)

عَبْدَ اللَّهِ بْنَ عُمَرَ رَضِيَ اللَّهُ عَنْهُمَا يَقُولُ: قَالَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ: «مَنْ جَرَّ ثَوْبَهُ مَخِيلَةً لَمْ يَنْظُرِ اللَّهُ إِلَيْهِ يَوْمَ القِيَامَةِ» (صحيح البخارى، رقم الحديث-5791)

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

Print Friendly, PDF & Email

এটাও পড়ে দেখতে পারেন!

হালাল ও হারাম মিশ্রিত সম্পদের মালিকের কাছ থেকে হাদিয়া গ্রহণের বিধান

প্রশ্ন মুফতী সাহেব, আসসালামু আলাইকুম। আমি একজন ইন্টার্নী ডাক্তার, ঢাকা মেডিকেল কলেজে কর্মরত আছি।  আমার কিছু প্রশ্ন ছিল, আশা করি উত্তর প্রদান করে বাধিত করবেন। নামঃ সালেহ মোহাম্মদ শোয়াইব দেশঃ বাংলাদেশ বিষয়ঃ ব্যাঙ্ক লোন নিয়ে বাড়ি …