হোম / তাবলীগ জামাত / তাবলীগের চিল্লায় থাকা অবস্থায় ব্যক্তি মুসাফির নাকি মুকীম?

তাবলীগের চিল্লায় থাকা অবস্থায় ব্যক্তি মুসাফির নাকি মুকীম?

প্রশ্ন

> আবু আইয়ুব আনসারী,  কুমিল্লা।
> প্রশ্ন : হুজুর তাবলীগে ৪০ দিনের জন্য ৪৮ মাইলের অধিক গেল  কিন্তু কোথাও একাধারে ১৫ দিন থাকার নিয়ত নেই  বরং কয়েক গ্রাম মিলে  ৪০ দিন থাকার নিয়ত করল। এই মুহুর্তে ব্যক্তি মুকীম না মুসাফির , দয়া করে বিস্তারিত জানালে উপকৃত হব

উত্তর

بسم الله الرحمن الرحيم

কোন এক গ্রামে লাগাতার পনের দিন থাকার নিয়ত না করলে মুসাফিরই থাকবে। তাই একাকী নামায পড়লে বা নিজেরা নামায পড়লে কসর আদায় করতে হবে।

কিন্তু মুকীম ইমামের পিছনে নামায পড়লে পুরো নামাযই পড়তে হবে।

আর যদি এক গ্রামেরই একাধিক মসজিদে বা এক মসজিদেই পনের দিন থাকার নিয়ত করে, তাহলে মুকীম হয়ে যাবে। তখন নামায পূর্ণই পড়তে হবে। কসর করা যাবে না।

فى تنوير الابصار- (من خرج من عمارة موضع إقامته) قاصدا مسيرة ثلاثة أيام ولياليها بالسير الوسط مع الاستراحات المعتادة صلى الفرض الرباعي ركعتين حتى يدخل موضع مقامه أَوْ يَنْوِيَ إقَامَةَ نِصْفِ شَهْرٍ (الدر المختار، كتاب الصلاة، باب صلاة المسافر-2/599-605، قاضى خان-1/164)

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

 

Print Friendly, PDF & Email

এটাও পড়ে দেখতে পারেন!

তালাকের আবেদনের প্রেক্ষিতে “আরেকবার বললে যা বলছো তা’ই হবে” বলার দ্বারা তালাক হয় কি?

প্রশ্ন বরাবর, মুহতামিম সাহেব, আসসালামু আলাইকুম। সম্মনিত মুফতি সাহেব। যদি স্বামী স্ত্রী ঝগড়ার এক পর্যায়ে …