হোম / জায়েজ নাজায়েজ / মায়ের অজান্তে ছেলে উত্তেজনার সাথে স্পর্শ করলে হুরমত সাব্যস্ত হয়ে যায়?
বিস্তারিত জানতে ছবির উপর টাচ করুন

মায়ের অজান্তে ছেলে উত্তেজনার সাথে স্পর্শ করলে হুরমত সাব্যস্ত হয়ে যায়?

প্রশ্ন

মা ঘুমন্ত অবস্থায় বা সজাগ অবস্থায় যদি ছেলে স্পর্শ করে কিন্তু মা জানেনা যে ছেলের উত্তেজনা ছিল তাহলে কি হুরমত মুছাহারা হবে?

ছেলের এখন কি করণীয়? এজন্য কি মা বাবা বা ছেলের ব্যভিচার এর গুনাহ হবে? মা বাবা তো জানে না। দয়া করে ই মেইল এ রিপ্লাই দিয়েন।

উত্তর

بسم الله الرحمن الرحيم

হুরমতে মুসাহারাত সাব্যস্ত হবার জন্য কয়েকটি শর্ত রয়েছে।

শর্তগুলো হল,

সরাসরি খালি গায়ে বা এমন কাপড়ের উপর দিয়ে স্পর্শ করে, যা এতটাই পাতলা যে, শরীরের উষ্ণতা অনুভব হয়। যদি এমন মোটা কাপড় পরিধান করে থাকে যে, শরীরের উষ্ণতা অনুভূত না হয়, তাহলে নিষিদ্ধতা সাব্যস্ত হবে না।

فى الدر المختار- أو لمس ) ولو بحائل لا يمنع الحرارة

وقال ابن عبدين– ( قوله : بحائل لا يمنع الحرارة ) أي ولو بحائل إلخ ، فلو كان مانعا لا تثبت الحرمة ، كذا في أكثر الكتب (الفتاوى الشامية، كتاب النكاح، فصل فى المحرمات-3/107-108)

স্পর্শ করলে পুরুষ মহিলা যেকোন একজনের উত্তেজনা অনুভুত হওয়া।

পুরুষের উত্তেজনা অনুভূত হওয়ার লক্ষণ হল গোপনাঙ্গ দাঁড়িয়ে যাওয়া, আর পূর্ব থেকে দাঁড়িয়ে থাকলে স্পর্শ করার পর উত্তেজনা বৃদ্ধি পাওয়া।

وفى رد المحتار- قوله (بشهوة) اي ولو من احدهما،

وفى الدر المختار- وحدها فيهما تحرك آلته أو زيادته به يفتى

 وفي امرأة ونحو شيخ كبير تحرك قلبه أو زيادته (الفتاوى الشامية، كتاب النكاح، فصل فى المحرمات-4/107-109)

স্পর্শ করার সময় উত্তেজিত হতে হবে। যদি স্পর্শ করার সময় কেউ উত্তেজিত না হয়, তাহলেও নিষিদ্ধতা প্রমাণিত হবে না। সেই সাথে স্পর্শ করার আগে বা শেষে, হাত ছেড়ে দেওয়ার আগে বা পর যদি উত্তেজনা অনুভূত হয় তাহলেও নিষিদ্ধতার সাব্যস্ত হবে না।

وفى الدر المختار- والعبرة للشهوة عند المس والنظر لا بعدهما

وفى رد المحتار- ( قوله : والعبرة إلخ ) قال في الفتح : وقوله : بشهوة في موضع الحال ، فيفيد اشتراط الشهوة حال المس ، فلو مس بغير شهوة ، ثم اشتهى عن ذلك المس لا تحرم عليه (رد المحتار-كتاب النكاح، فصل فى المحرمات-4/108)

স্পর্শ করার পর উদ্ভূত উত্তেজনা স্থীর হওয়ার পূর্বেই বীর্যপাত না হতে হবে। যদি উত্তেজনা হওয়ার সাথে সাথেই বীর্যপাত হয়ে যায়, তাহলেও নিষিদ্ধতা সাব্যস্ত হবে না।

وفى الدر المختار- هذا إذا لم ينزل فلو أنزل مع مس أو نظر فلا حرمة به بفتى

وفى رد المحتار- قوله : فلا حرمة ) لأنه بالإنزال تبين أنه غير مفض إلى الوطء هداية .

قال في العناية : ومعنى قولهم إنه لا يوجب الحرمة بالإنزال أن الحرمة عند ابتداء المس بشهوة كان حكمها موقوفا إلى أن يتبين بالإنزال ، فإن أنزل لم تثبت ، وإلا ثبت(الفتاوى الشامية، كتاب النكاح، فصل فى المحرمات-4/109

মহিলার বয়স ৯ বছর থেকে কম না হতে হবে। আর পুরুষের বয়স ১২ বছর থেকে কম না হতে হবে। {হুরমতে মুসাহারাত-১৯}

উপরোক্ত ৫টি শর্ত পাওয়া গেলে তাহলে হুরমতে মুসাহারাত সাব্যস্ত হয়ে গেছে।

এখন উক্ত ছেলের জন্য আবশ্যক বিষয়টি মা বাবাকে সরাসরি বা অন্য কোন মাধ্যমে জানানো। শরয়ী হুকুম হল, এখন আর তার পিতা মাতা এক সাথে বসবাস করতে পারবে না। কারণ উক্ত হারাম স্পর্শের দ্বারা স্বামী স্ত্রীর বন্ধন ছিন্ন হয়ে গেছে। আলাদা হয়ে যেতে হবে।

এরপরও একসাথে থাকলে যিনার গোনাহ হবে।

وكذا المقبلات، أو الممسوسات بشهوة لأصوله، أو فروعه (رد المحتار-4/100)

لأن حرمة المصاهرة إذا ثبتت لا تسقط أبدا (رد المحتار-4/109)

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

Print Friendly, PDF & Email
বিস্তারিত জানতে ছবির উপর টাচ করুন

এটাও পড়ে দেখতে পারেন!

এক তালাক প্রদানের পর ইদ্দত শেষ হলে করণীয় কী? স্ত্রী না শুনতে পেলে তালাক হয় না?

প্রশ্ন আসালামু আলাইকুম, অনেক চেষ্টার করেও একবন্ধুর স্ত্রী প্রায় ৮-৯ মাস পরেও মায়ের বাড়িতে থেকে …