হোম / অজু/গোসল/পবিত্রতা/হায়েজ/নেফাস / সফরের সময় বাসে নামায পড়া সংক্রান্ত জরুরী মাসআলা

সফরের সময় বাসে নামায পড়া সংক্রান্ত জরুরী মাসআলা

প্রশ্ন

assalamu alaikum,

saforer somoy namajer jonno bus theke namte na parle site boshe  namaj pora jabe kina? oju kivabe korbo?

mohilara jodi nirzon jayga na pay tobe namajer somoy mukh o hat pa khulte hobe kina? taratari janale valo hoy.

Engineer Reza-

 

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

 

বাসে থাকা অবস্থায় চেষ্টা করবে বাস থেকে নেমে নামায পড়তে। যদি বাসের ড্রাইভারকে বলে গাড়ি থামিয়ে নামায পড়ে নিবে।

যদি বাস না থামায় তাহলে দাঁড়িয়ে নামায পড়ে নিবে। যদি দাঁড়াতে সক্ষম না হয়, তাহলে সিটে বসে নামায পড়ে নিবে। বসে নামায আদায় করলে পরবর্তীতে উক্ত নামায আর কাযা করতে হবে না।

কিন্তু যদি কিবলা দিকে ফিরে নামায পূর্ণ না করতে পারে। তাহলে নামায পুনরায় পড়তে হবে। কিবলামুখী হয়ে পড়তে পারলে পরে আর কাযা করতে হবে না।

হ্যাঁ, যদি বসেও নামায পড়তে না পারে, তাহলে ইশারায় নামায পড়ে নিবে। তবে এ নামায পরবর্তীতে কাযা করে নিতে হবে।

যদি ওজু করার কোন ব্যবস্থা না থাকে, তাহলে তায়াম্মুম করে নামায পড়ে নিবে। তায়াম্মুম করে নামায পড়লে পরবর্তীতে পানি পেলে তায়াম্মুম দ্বারা নামায পড়ার কারণে নামায হয়নি মনে করে আবার নামায দোহরাতে হবে না। বরং তায়াম্মুম দ্বারা নামাযটি শুদ্ধ হয়ে গেছে।

আর নামাযের সময় মহিলাদের মুখ হাত খোলা জরুরী নয়। মুখ হাত না খুলেই নামায পড়া যাবে। কোন সমস্যা নেই।

مسافر لا يقدر على الأرض…….. يصلى بالإيماء إذا خاف فوت الوقت، (رد المحتار، كتاب الصلاة، مطلب فى القادر بقدرة الغير-2/41)

الأسير فى يد العدو إذا منعه الكافر عن الوضوء والصلاة يتيمم ويصلى بالإيماء، ثم يعيد إذا خرج……… لأن هذا عذر جاء من قبل العباد، فلا يسقط فرض الوضوء عنه، فعلم منه أن العذر إن كان من قبل الله تعالى لا تجب الإعادة، وإن كان من قبل العبد وجبت الإعادة، (البحر الرائق، كتاب الطهارة، باب التيمم-1/248)

ومن عجز عن استعماله لبعده ميلا….. تيمم لهذه الأعذار كلها، (رد المحتار، باب التيمم-1/232، 236)

فمنها أن لا يكون واجدا للماء قدر ما يكفى لطهارته فى الصلاة التى إلى خلف وما هو من أجزاءها لقوله تعالى فلم تجدوا ماء فتيمموا (النساء-43) وغير الكافى كالمعدوم، وهذا عندنا، (البحر الرائق، كتاب الطهارة، باب التيمم-1/242، وكذا فى مبسوط السرخسى، كتاب الصلاة، باب التيمم-1/107)

وفى الفتاوى الهندية- إذا منعه الكافر عن الوضوء والصلاة يتيمم ويصلى بالإيماء ثم يعيد إذا خرج وكذا الرجل إذا قال لغيره أن توضأت حبستك أو قتلتك فإنه يصلي بالتيمم ثم يعيد كذا في فتاوى قاضي خان المحبوس في السجن يصلي بالتيمم ويعيد بالوضوء لأن العجز إنما تحقق بصنع العباد وصنع العباد لا يؤثر في إسقاط حق الله تعالى ولو حبس في السفر يتيمم ويصلي ولا يعيد لأنه انضم عذر السفر إلى العجز الحقيقي والغالب في السفر عدم الماء 1 فتحقق العدم من كل وجه كذا في محيط السرخسي والأصل انه متى امكنه استعمال الماء من غير لحوق ضرر في نفسه أو ماله وجب استعماله (الفتاوى الهندية ، كتاب الطهارة وفيه سبعة أبواب ، الباب الرابع في التيمم وفيه ثلاثة فصول الفصل الأول في أمور لا بد منها في التيمم -1/28

والله اعلم بالصواب

উত্তর লিখনে

লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

ইমেইল- ahlehaqmedia2014@gmail.com

lutforfarazi@yahoo.com

Print Friendly, PDF & Email

এটাও পড়ে দেখতে পারেন!

হালাল ও হারাম মিশ্রিত সম্পদের মালিকের কাছ থেকে হাদিয়া গ্রহণের বিধান

প্রশ্ন মুফতী সাহেব, আসসালামু আলাইকুম। আমি একজন ইন্টার্নী ডাক্তার, ঢাকা মেডিকেল কলেজে কর্মরত আছি।  আমার কিছু প্রশ্ন ছিল, আশা করি উত্তর প্রদান করে বাধিত করবেন। নামঃ সালেহ মোহাম্মদ শোয়াইব দেশঃ বাংলাদেশ বিষয়ঃ ব্যাঙ্ক লোন নিয়ে বাড়ি …